নিউইয়র্ক     সোমবার, ২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ  | ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সুরক্ষিত রাখুন চোখ

লাইফস্টাইল ডেস্ক

প্রকাশ: ১৪ এপ্রিল ২০২৩ | ১১:৪৪ অপরাহ্ণ | আপডেট: ১৪ এপ্রিল ২০২৩ | ১১:৪৪ অপরাহ্ণ

ফলো করুন-
সুরক্ষিত রাখুন চোখ

স্মার্টফোন এখন আমাদের যাপনের জরুরি অনুষঙ্গ। এর ব্যবহার যত বাড়ছে, ততই বাড়ছে চোখের সমস্যা। স্মার্টফোনের ক্ষতিকর রশ্মি এবং এর ব্যবহার থেকে চোখ বাঁচাতে কিছু নিয়ম মেনে চলা যেতে পারে।

  • মোবাইলের উজ্জ্বল আলো বহু ক্ষেত্রেই চোখে যন্ত্রণা দেয়, বিশেষ করে অন্ধকারে তো বটেই। সে ক্ষেত্রে মোবাইলের ডার্ক মুড, অর্থাৎ ডার্ক থিম ব্যবহার করুন।
  • অ্যান্টি গ্লেয়ার প্রোটেক্টর ব্যবহার করুন। এতে চোখের ওপর ক্ষতিকর নীল রশ্মির প্রভাব কম পড়বে। চোখ শুকিয়ে যাওয়ার প্রবণতা কমবে।অনেক বেশি উজ্জ্বল কিংবা একেবারেই অনুজ্জ্বল পর্দা (ডিসপ্লে) এবং এর বৈপরীত্য কোনোটাই চোখের জন্য ভালো নয়। এগুলোর সামঞ্জস্য রাখতে হবে। যন্ত্রের নির্ধারিত (বিল্টইন) উজ্জ্বলতা সেটিংস ব্যবহারই এ ক্ষেত্রে উত্তম।
  • প্রায় প্রতিটি মোবাইল ফোনেই থাকে ডিজিটাল ওয়েলবিং ফিচার। এই ফিচার ব্যবহার করে স্ক্রিন টাইম কমানোর চেষ্টা করতে পারেন।
  • বারবার চোখের পলক ফেলুন। তাতেও চোখ ভিজে থাকবে। আধা ঘণ্টা পর পরিষ্কার পানির ঝাপটা দিয়ে চোখ ধুয়ে নিন।
  • অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোনের জন্য নাইট লাইট এবং আইফোনের জন্য নাইট শিফট সুবিধা ব্যবহার করা যেতে পারে। এই ফিচারের ফলে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই পর্দার রং ও উজ্জ্বলতায় সামঞ্জস্য আসে।
  • ২০ মিনিট টানা ফোনের দিকে তাকিয়ে থাকলে তার পরে অন্তত ২০ সেকেন্ড ২০ ফুট দূরের কোনো কিছুর দিকে তাকান।
  • চোখের একেবারে কাছে না ধরে ১৬ থেকে ১৭ ইঞ্চি দূরে রাখুন মোবাইল ফোন। তাতেও চোখে কম চাপ পড়বে।
  • স্মার্টফোনে লেখার আকার বা ফন্ট সাইজ বড় রাখা ভালো। ছোট আকারের লেখার ব্যবহার চোখের ওপর চাপ ফেলে এবং ক্ষতি করে। বড় আকারের লেখা সহজে পড়াও যায়।

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কথা, যখনই চোখের ন্যূনতম সমস্যা হবে, চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।-নীরা নিনিত

এসএ/এমএএস/এমউএ/টিএ/পরিচয়

শেয়ার করুন