নিউইয়র্ক     বৃহস্পতিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ  | ৯ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মেয়েকে নিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কুচকাওয়াজে কিম, শুভেচ্ছা জানালেন পুতিন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ: ১০ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | ০৯:০০ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ১০ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | ০৯:০০ পূর্বাহ্ণ

ফলো করুন-
মেয়েকে নিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কুচকাওয়াজে কিম, শুভেচ্ছা জানালেন পুতিন

উত্তর কোরিয়ার ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে মেয়েকে নিয়ে হাজির হয়েছিলেন কিম জং উন। ছবি: রয়টার্স

উত্তর কোরিয়ার ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে পিয়ংইয়ংয়ে হয়ে গেল জমকালো কুচকাওয়াজ। এতে যোগ দেন উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন এবং তার বড় মেয়ে। কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে রাশিয়া ও চীনের একটি প্রতিনিধিদলও অংশ নেন। শনিবার (৯ সেপ্টেম্বর) বার্তাসংস্থা সিএনএনের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, শুক্রবার (৮ সেপ্টেম্বর) রাজধানী পিয়ংইয়ংয়ের কিম ইল সাং স্কয়ারে এ কুচকাওয়াজের আয়োজন করা হয়। জমকালো কুচকাওয়াজে অংশ নিয়েছেন আধা সামরিক বাহিনীর হাজারো সদস্য। ফুটিয়ে তোলা হয়েছে উত্তর কোরিয়ার পতাকা, রঙিন বর্ণে ফুটিয়ে তুলেছে ৭৫ সংখ্যাটি। কুচকাওয়াজে বিভিন্ন সামরিক সরঞ্জাম প্রদর্শিত হয়, যা দেখে কিম জং উন উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। পরে মনোমুগ্ধকর আতশবাজির প্রদর্শনী হয়, যা দেখে মুগ্ধ হন দর্শনার্থীরা।

অনুষ্ঠানে রাশিয়া এবং চীনের পক্ষ থেকে প্রতিনিধিরা যোগ দিয়েছিলেন। চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং উত্তর কোরিয়ার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে অভিনন্দন জানিয়েছেন। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনও শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেছেন, রাশিয়া ও উত্তর কোরিয়ার সম্পর্ক সবদিক থেকে আরও দৃঢ় হবে। এ মাসেই রাশিয়া সফরে যাওয়ার কথা উত্তর কোরিযার সর্বোচ্চ নেতার। ইউক্রেন যুদ্ধে ব্যবহারের জন্য রাশিয়াকে অস্ত্র সরবরাহ করবে উত্তর কোরিয়া, যুক্তরাষ্ট্রের এমন অভিযোগের মধ্যেই কিম মস্কো যাচ্ছেন। সেখানে অস্ত্র সরবরাহের বিষয়ে তাদের মধ্যে আলোচনা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কিম জং উন চলতি মাসেই রাশিয়া সফরে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে। এই সফরকালে রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে বৈঠক করবেন তিনি। বৈঠকে ইউক্রেন যুদ্ধে অস্ত্র সরবরাহের সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করবেন তারা। উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে এর আগেও ইউক্রেনের যুদ্ধে ব্যবহারের জন্য রাশিয়াকে অস্ত্র সরবরাহ করার অভিযোগ উঠেছিল। তবে সেটি অস্বীকার করেছে পিয়ংইয়ং ও মস্কো।

শেয়ার করুন