নিউইয়র্ক     শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ  | ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

‘ভয়ানক ভুল’ করে ক্ষমা চাইলেন জাস্টিন ট্রুডো

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | ০৭:১৩ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | ০৭:১৩ পূর্বাহ্ণ

ফলো করুন-
‘ভয়ানক ভুল’ করে ক্ষমা চাইলেন জাস্টিন ট্রুডো

সমালোচনার মুখে ক্ষমা চেয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। অ্যাডলফ হিটলারের নাৎসি বাহিনীর হয়ে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে অংশ নেওয়া এক ইউক্রেনীয় ব্যক্তিকে কানাডার পার্লামেন্টে আমন্ত্রণ জানিয়ে সম্মান জানানোয় আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা চাইলেন ট্রুডো।

এর আগে একই ঘটনায় সমালোচনার মুখে পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছেন কানাডার পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ হাউস অব কমন্সের স্পিকার অ্যান্থনি রোটা। তিনি ওই ব্যক্তিকে পার্লামেন্টে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। তার প্রশংসাও করেছিলেন। তীব্র সমালোচনার মুখে ক্ষমা চেয়ে বিবৃতিও দিয়েছেন রোটা।

স্থানীয় সময় বুধবার বিকেলে হাউস অব কমন্সে দেওয়া বক্তব্যে ট্রুডো বলেন, এ ঘটনায় ‘ভয়ানক ভুল’ হয়ে গেছে। ওই সময় এই পার্লামেন্টে যারা উপস্থিত ছিলেন, তাদের সবার পক্ষ থেকে আমি ক্ষমা চাইছি। জাস্টিন ট্রুডো আরও বলেন, সঠিক পরিচয় না জেনে ওই ব্যক্তিকে সম্মান জানানো একটি ভয়ানক ভুল। নাৎসি বাহিনীর নিষ্ঠুরতার শিকার হওয়া ব্যক্তিদের স্মৃতির প্রতি অশ্রদ্ধা। এ জন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী।

ঘটনার সূত্রপাত গত শুক্রবার কানাডার পার্লামেন্টে। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি ওই দিন কানাডার পার্লামেন্টের বিশেষ অধিবেশনে হাজির ছিলেন। অধিবেশনে আরও উপস্থিত ছিলেন ৯৮ বছর বয়সী ইউক্রেনীয় নাগরিক ইয়ারোস্লাভ হানকা। এ সময় তাকে ‘বীর’ হিসেবে প্রশংসা করেন স্পিকার রোটা। উঠে দাঁড়িয়ে জানানো অভ্যর্থনা (স্ট্যান্ডিং ওভেশন) পান হানকা। রোটা তার প্রশংসা করেন।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় নাৎসি বাহিনীর ১৪ ওয়াফেন-এসএস গ্রেনাডিয়ার ডিভিশনে কাজ করেছিলেন হানকা। এটি ছিল নাৎসি বাহিনীর অধীন একটি স্বেচ্ছাসেবী ইউনিট। এই ইউনিটের বেশির ভাগ সদস্য ছিলেন ইউক্রেনীয়রা। কানাডার পার্লামেন্টে হানকাকে সম্মান জানানোয় বিশ্বব্যাপী নিন্দার ঝড় ওঠে। পরে রোটা দাবি করেন, তিনি হানকার নাৎসি-সংশ্লিষ্টতার কথা জানতেন না। তিনি তাকে আমন্ত্রণ জানিয়ে ভুল করেছেন। অবশেষে সমালোচনার মুখে গত মঙ্গলবার স্পিকারের পদ ছাড়তে হয় রোটাকে। সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন ট্রুডোও। সোমবার সাংবাদিকদের তিনি বলেন, যা ঘটেছে, তা অত্যন্ত হতাশাজনক। ঘটনাটি কানাডার পার্লামেন্টের জন্য খুবই বিব্রতকর। সূত্র : যুগান্তর

শেয়ার করুন