নিউইয়র্ক     বৃহস্পতিবার, ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ  | ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এশিয়া চ্যাম্পিয়নদের চ্যালেঞ্জিং টার্গেট দিল ‘পুঁচকে’ নামিবিয়া

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশ: ১৬ অক্টোবর ২০২২ | ০৬:২৪ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ১৬ অক্টোবর ২০২২ | ০৬:২৪ পূর্বাহ্ণ

ফলো করুন-
এশিয়া চ্যাম্পিয়নদের চ্যালেঞ্জিং টার্গেট দিল ‘পুঁচকে’ নামিবিয়া

এশিয়া কাপ জয়ী শ্রীলংকার কাছে নামিবিয়াকে পুঁচকে বলবে সবাই। তবে মাঠের লড়াইয়ে নিজেদের শক্তির কথা জানান দেবে বলে প্রত্যয় ব্যক্তি করে দলটি। শক্তিশালী শ্রীলংকাকে হারিয়ে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচেই চমক উপহার দেবেন বলে হুমকি দেন নামিবিয়ান ব্যাটার ব্যাটার স্টিভেন বার্ড। সেই হুমকির প্রথম ধাপে অনেকটাই সফল নামিবিয়া। শ্রীলংকার শক্তিশালী বোলারদের দারুণ মোকাবিলা করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৬৩ রান সংগ্রহ করেছে আফ্রিকার দলটি।

এক কথায় এশিয়া কাপ জয়ীদের সামনে ১৬৪ রানের চ্যালেঞ্জিং টার্গেট ছুড়ে দিয়েছে নামিবিয়া। শুরুটা অবশ্য ভালো করতে পারেনি নামিবিয়া। দ্রুত ৪টি উইকেট পড়ে যায় ৮০ রান ছোঁয়ার আগেই। তবে সেখান থেকে ধুমধাড়াক্কা ইনিংস খেলে দলকে বড় সংগ্রহ পাইয়ে দিয়েছেন ইয়ান ফ্রাইলিংক ও টেলএন্ডার জেজে স্মিথ। সকালে টসে জিতে নামিবিয়াকে ব্যাটিংয়ে পাঠান শ্রীলংকার অধিনায়ক দাসুন শানাকা।

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই শ্রীলংকাকে ব্রেক থ্রু এনে দেন দুষ্মন্তে চামিরা। ৬ বলে ৩ রান করে প্রমোদ মধুশানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান মাইকেল ফন লিংগেন। পরের ওভারের শেষ বলে দ্বিতীয় উইকেটটি হারায় নামিবিয়া। গুড লেন্থের বলটি ডিফেন্স করতে গিয়ে শূন্যে তুলে দেন ডিভান লা কুক। দাসুন শানাকা ক্যাচটি তালুবন্দি করে নেন। ১৬ রানের মাথায় পড়ে দ্বিতীয় উইকেট।

৫ম ওভারে গিয়ে তাদের তৃতীয় উইকেট হারায় নামিবিয়া। এবার আঘাত হানেন চামিকা করুনারত্নে। নিকোল লফটি ইটন শট নিলে ব্যর্থ হন। চলে যায় উইকেটরক্ষক কুশল মেন্ডিসের কাছাকাছি সীমানায়। বাঁ-হাতে অসাধারণভাবে ঝাঁপিয়ে ক্যাচ গ্লাভসবন্দি করেন। ১টি বাউন্ডারির সঙ্গে ২টি ছক্কার মারে ১২ বলে ২০ রান করে সাজঘরে ফেরেন নিকোল লফটি ইটন।

প্রথম তিন ব্যাটার ফিরে গেলেও রানের চাকা সচল রাখেন দুই মিডলঅর্ডার স্টিফেন বার্ড ও অধিনায়ক গেরহার্ড এরাসমাস। ৪২ রানের জুটি গড়েন। ১২তম ওভারে হাসারাঙ্গার ঘূর্ণিতে পরাস্ত হয়ে থামে অধিনায়কের ইনিংস। ২৪ বলে ২০ রান করেন এরাসমাস।

এরপর দলের হাল ধরেন ইয়ান ফ্রাইলিংক। তবে ফ্রাইলিংকের সঙ্গে বেশি দূর যেতে পারেননি স্টিফেন বার্ড। ১৩তম ওভারের শেষ বলে ব্যাকওয়ার্ড স্কয়ার লেগে ক্যাট দিয়ে ফেরেন বার্ড। প্রমদ মাদুশানের বলে আউটের আগে বার্ডের ব্যাট ছুঁয়ে আসে ২৬ রান।

পরের ওভারেই ফ্রাইলিংকে ছেড়ে যান নামিবিয়া দলের সেরা তারকা ডেভিড ওয়াইসি। থিকসানার বলে মেন্ডিসের হাতে ক্যাচ তুলে দেন তিনি। রানের খাতাই খুলতে পারেননি ডেভিড। সতীর্থদের আসা-যাওয়া বিচলিত করতে পারেনি ফ্রাইলিংককে। চার-ছক্কা হাকিয়ে দলকে টেনে নিয়ে গেছেন তিনি। তার সঙ্গী হয়ে দারুণ ব্যাট করেছেন স্মিথ।

১৮তম ওভারে ফ্রাইলিংক-স্মিথ জুটি নেয় ১৬ রান, ১৯তম ওভারে তারা করেন ১৮ রান। শেষ ওভারের শেষ বলে রানআউট হন ফ্রাইলিংক। তার আগে তিনি করেন ২৮ বলে ৪৪ রান। ১৬ বলে ৩১ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন তিনি।

শেয়ার করুন