নিউইয়র্ক     বুধবার, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ  | ১২ই আশ্বিন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

এবার পাকিস্তানের প্রতি আস্থার কথা জানালো যুক্তরাষ্ট্র

পরিচয় ডেস্ক

প্রকাশ: ১৮ অক্টোবর ২০২২ | ০২:২২ অপরাহ্ণ | আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০২২ | ০২:২২ অপরাহ্ণ

ফলো করুন-
এবার পাকিস্তানের প্রতি আস্থার কথা জানালো যুক্তরাষ্ট্র

পাকিস্তানকে “সবচেয়ে বিপজ্জনক দেশ” বলে মন্তব্য করেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় দেশটির রাষ্ট্রদূতকে তলব করে ইসলামাবাদ। এবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর সুর পাল্টে বলছে, নিজেদের পারমাণবিক সম্পদের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা দেওয়ার বিষয়ে পাকিস্তানের সামর্থ্যের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের আস্থা আছে। এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

সোমবার (১৭ অক্টোবর) যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বেদান্ত প্যাটেল সাংবাদিকদের বলেন, “পারমাণবিক সম্পদের সুরক্ষায় পাকিস্তানের অঙ্গীকার ও সামর্থ্যের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র আস্থাশীল। যুক্তরাষ্ট্র সবসময়ই সুরক্ষিত ও সমৃদ্ধ পাকিস্তানকে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে দেখেছে।” গত বৃহস্পতিবার এক অনুষ্ঠানে জো বাইডেন বলেছিলেন, “আমার মনে হয়, পাকিস্তান হয়ত বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক দেশগুলোর মধ্যে একটি। কারণ, দেশটির হাতে থাকা পারমাণবিক অস্ত্রের কোনো সমন্বয় নেই।”

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের এমন মন্তব্যের কড়া প্রতিক্রিয়া জানায় পাকিস্তান। ইসলামাবাদে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতকেও তলব করে দেশটি। বাইডেনের মন্তব্যের বিষয়ে এক সাংবাদিক দৃষ্টি আকর্ষণ করলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, “এখানে বলার মতো সুনির্দিষ্ট কোনো বক্তব্য আমার কাছে নেই। তবে পারমাণবিক সম্পদের সুরক্ষায় পাকিস্তানের অঙ্গীকার ও সামর্থ্যের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র আস্থাশীল।”

শনিবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি বলেন, ‘‘পাকিস্তানের পারমাণবিক সব সম্পদ আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার (আইএইএ) নিরাপত্তা ও সুরক্ষা সংক্রান্ত প্রত্যেকটি আন্তর্জাতিক মানদণ্ড পূরণ করেছে। যদি পারমাণবিক নিরাপত্তা নিয়ে কোনো প্রশ্ন থাকে, তাহলে সেই প্রশ্ন আমাদের প্রতিবেশী ভারতের দিকে ছোড়া উচিত; যারা অতি সম্প্রতি দুর্ঘটনাক্রমে পাকিস্তানের ভূখণ্ডে একটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে।” পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘‘এটা শুধু দায়িত্বজ্ঞানহীন ও অনিরাপদই নয়, বরং পরমাণু-সক্ষম দেশগুলোর নিরাপত্তা নিয়ে প্রকৃত এবং গুরুতর উদ্বেগের বিষয়টি তুলে ধরে।”

শেয়ার করুন