নিউইয়র্ক     রবিবার, ১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ  | ৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইসরায়েলি হামলায় ২ সিরীয় সেনা নিহত, দামেস্ক বিমানবন্দর বন্ধ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ: ০২ জানুয়ারি ২০২৩ | ০৩:৫৫ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ০২ জানুয়ারি ২০২৩ | ০৩:৫৫ পূর্বাহ্ণ

ফলো করুন-
ইসরায়েলি হামলায় ২ সিরীয় সেনা নিহত, দামেস্ক বিমানবন্দর বন্ধ

সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। এতে সিরিয়ার ২ সেনা নিহত হয়েছেন এবং হামলার জেরে বিমানবন্দরটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সিরিয়ার সামরিক বাহিনী এই তথ্য জানিয়েছে। সোমবার (২ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইসরায়েলি বিমান হামলায় কমপক্ষে দুই সিরিয়ান সেনা নিহত হয়েছেন এবং দেশটির প্রধান আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরটির পরিষেবা বন্ধ হয়ে গেছে বলে সিরিয়ার সামরিক বাহিনী জানিয়েছে।

সিরিয়ার সরকারি বার্তাসংস্থা সানার প্রকাশিত এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সোমবার স্থানীয় সময় মধ্যরাত ২ টায় দামেস্ক আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এবং এর আশপাশের এলাকা লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালানো হয় বলে সিরিয়ার সামরিক বাহিনী জানিয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ইসরায়েলের ওই হামলার ফলে ‘দুই সৈন্যের মৃত্যু, অন্য দু’জন আহত, কিছু বস্তুগত ক্ষয়ক্ষতি’ হয়েছে এবং বিমানবন্দরটির পরিষেবা বন্ধ হয়ে গেছে। অবশ্য দামেস্কে হামলার বিষয়ে ইসরায়েলের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিক কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে সর্বশেষ এই ঘটনাটিসহ গত এক বছরেরও কম সময়ের মধ্যে এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো দামেস্ক আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হলো।

এর আগে গত বছরের ১০ জুন ইসরায়েলি বিমান হামলার ঘটনা ঘটে দামেস্ক বিমানবন্দরে। ওই হামলায় বিমানবন্দরের অবকাঠামো এবং রানওয়েগুলোর উল্লেখযোগ্য ক্ষতি হয়েছিল। অবশ্য মেরামত শেষে দুই সপ্তাহ পরে বিমানবন্দরটি আবারও চালু হয়।

মূলত ২০১১ সালে সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে ইসরায়েল এই দেশটির অভ্যন্তরে শত শত বিমান হামলা চালিয়েছে। সরকারি অবস্থানের পাশাপাশি মিত্র ইরান-সমর্থিত বাহিনী এবং হিজবুল্লাহ যোদ্ধাদের লক্ষ্য করে এসব হামলা চালানো হয়েছে। ইসরায়েল অবশ্য খুব কমই সিরিয়ায় এই ধরনের অভিযানের বিষয়ে প্রকাশ্যে কোনো মন্তব্য করে থাকে।

ইসরায়েল অবশ্য স্বীকার করেছে, তারা ইরান-মিত্র সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর ঘাঁটিগুলোকে লক্ষ্য করে হামলা চালিয়ে থাকে। যেমন লেবাননের হিজবুল্লাহ ইসরায়েলের হামলার অন্যতম টার্গেট, কারণ তারা সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আসাদের বাহিনীকে সহায়তা করার জন্য হাজার হাজার যোদ্ধা পাঠিয়েছে।

শেয়ার করুন