নিউইয়র্ক     শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ  | ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ইমরান ইস্যুতে মিথ্যাচারের শেষ চায় পাক সরকার ও সেনাবাহিনী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ: ০৫ নভেম্বর ২০২২ | ০১:৩৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: ০৫ নভেম্বর ২০২২ | ০১:৩৩ অপরাহ্ণ

ফলো করুন-
ইমরান ইস্যুতে মিথ্যাচারের শেষ চায় পাক সরকার ও সেনাবাহিনী

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী তার ওপর হামলায় জন্য সরকারি কর্মকর্তাদের ওপর যে দোষারোপ করেছেন, তাকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছে দেশটির সরকার ও সেনাবাহিনী। শনিবার (৫ নভেম্বর) পাকিস্তানি সংবাদপত্র দ্য ডনের প্রতিবেদনে বলা হয়, উদ্ভট অভিযোগ তুলে বাহিনীর কারও মান-মর্যাদা কালিমালিপ্ত করা হলে কর্মকর্তা ও সেনাদের সুরক্ষা দেবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী।

সশস্ত্র বাহিনীর গণমাধ্যম ও জনসংযোগ শাখা ইন্টার-সার্ভিসেস পাবলিক রিলেশনস (আইএসপিআর) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলেছে, পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) চেয়ারম্যান সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে এবং বিশেষ করে একজন জ্যেষ্ঠ সেনা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে যে ভিত্তিহীন ও দায়িত্বজ্ঞানহীন অভিযোগ করেছেন তা একেবারেরই মেনে নেওয়া যায়না।

বৃহস্পতিবার (৩ নভেম্বর) ওয়াজিরাবাদের গুজরানওয়ালায় এক জনসমাবেশে ইমরানের ওপর গুলি চালায় এক ব্যক্তি। দুইটি গুলি ইমরানের পায়ের জঙ্ঘা ও ঊরুতে গিয়ে লাগে। এই হামলার ঘটনায় তিনজনকে দায়ী করেন ইমরান। তারা হলেন, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ এবং প্রতিরক্ষা গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই র শীর্ষ কর্মকর্তা মেজর জেনারেল ফয়সাল।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ ও তথ্যমন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেব এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, এসবের স্বাধীন তদন্ত করার দাবি জানিয়েছে কোয়ালিশন সরকার। শাহবাজ শরীফও হামলার নিন্দা জানিয়ে এর তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।

মুসলিম লীগ সরকারের (নওয়াজ) আরেক মন্ত্রী খাজা সাদ রফিক হামলার ঘটনা নিয়ে সন্দেহ পোষণ করে বলেন, আপনাদের কাছে কোনো প্রমাণ নেই, তাও আপনারা নাম বলা শুরু করেছেন। ইমরান প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন এমন কোনো ছবিও নেই। হতে পারে এটি পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র।

উল্লেখ্য, আগাম নির্বাচন ও শাহবাজ শরীফের পদত্যাগের দাবিতে গত শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) লাহোর থেকে রাজধানী ইসলামাবাদের উদ্দেশ্যে লংমার্চ শুরু করেন ইমরান খান। সুস্থ হয়ে উঠে এই আন্দোলন অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

শেয়ার করুন