নিউইয়র্ক     বুধবার, ৪ঠা অক্টোবর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ  | ১৯শে আশ্বিন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ইউক্রেনকে এবার যে উপদেশ দিলেন হেনরি কিসিঞ্জার

পরিচয় ডেস্ক

প্রকাশ: ২৫ জুলাই ২০২২ | ০৭:০৭ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ২৫ জুলাই ২০২২ | ০৭:০৭ পূর্বাহ্ণ

ফলো করুন-
ইউক্রেনকে এবার যে উপদেশ দিলেন হেনরি কিসিঞ্জার

ছয় মাসে পা দিয়েছে ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ। এমন পরিস্থিতিতে সম্ভাব্য কোনো চুক্তির আওতায় ইউক্রেন যেন তার কোনো ভূমি রাশিয়ার হাতে তুলে না দেয় সে উপদেশ দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেনরি কিসিঞ্জার।

জার্মানির সম্প্রচারমাধ্যম জেডডিএফের সঙ্গে আলাপকালে এ উপদেশ দেন কিসিঞ্জার। খবর আলজাজিরার।
যদিও এর আগে তিনি রাশিয়ার সঙ্গে শান্তি স্থাপনে ভূমি ছেড়ে দেওয়ার জন্য ইউক্রেনকে পরামর্শ দিয়েছিলেন।
যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক এ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর উপদেশ হলো, এ সংঘাত বন্ধের জন্য ভবিষ্যতে কোনো সম্ভাব্য শান্তিচুক্তির আওতায় যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর ইউক্রেনের যেসব অঞ্চল রাশিয়া দখল করেছে তা যেন কিয়েভ বা পশ্চিম ছেড়ে না দেয়।

তিনি বলেন, ইউক্রেনের ভূমি রাশিয়ার হাতে তুলে দেওয়ার বিষয়টি আলোচনার টেবিলে তোলা উচিত হবে না।

যে কোনো পরিস্থিতিতে কোনটি আলোচনার বিষয় এবং কোনটি নয় সে বিষয়ে স্পষ্ট হওয়ার জন্য পশ্চিমকে পরিষ্কার হওয়ার আহ্বান জানান কিসিঞ্জার।

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক এ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সবকিছুই করতে হবে ইউক্রেনের নাগরিকদের মতামত নিয়ে।

তবে এটি তার আগের অবস্থানের সরাসরি বিপরীত।

এর আগে মে মাসে এক মন্তব্যের জেরে ইউক্রেনের কর্মকর্তাদের ব্যাপক নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া সহ্য করতে হয়েছিল কিসিঞ্জারকে। এমনকি ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কিও তীব্র সমালোচনা করেছিলেন সাবেক মার্কিন এ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর।

সুইজারল্যান্ডের দাভোসে অনুষ্ঠিত বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামে তিনি বলেছিলেন, রাশিয়ার সঙ্গে শান্তি স্থাপনে ইউক্রেনের উচিত তার ভূমি ছেড়ে দেওয়া।

রাশিয়া ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে আগ্রাসন শুরু করে। দেশটির অভিযোগ, দোনবাসে রুশ ভাষীদের বিরুদ্ধে গণহত্যা চালানো হচ্ছে এবং তাদের স্বাধীনতা দরকার। ছয় মাসে পা দেওয়া এ যুদ্ধে ইউক্রেনের পূর্ব ও দক্ষিণাঞ্চলের কিছু অংশ দখল করতে পেরেছে রাশিয়া।

এদিকে কিয়েভ দখল করতে ব্যর্থ হওয়ার পর এখন মস্কোর দাবি, তাদের পরিকল্পনা দোনবাস নিয়ন্ত্রণে নেওয়া। কিন্তু এর মধ্যে রাশিয়া ইউক্রেনের এমন এমন এলাকায় হামলা চালাচ্ছে যেসব অঞ্চল মূল যুদ্ধক্ষেত্র থেকে অনেকটাই দূরে।

শেয়ার করুন