নিউইয়র্ক     বৃহস্পতিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ  | ৯ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ইউক্রেনকে অস্ত্র দেওয়ায় পাকিস্তানকে আইএমএফের ঋণ পাইয়ে দেয় যুক্তরাষ্ট্র

পরিচয় ডেস্ক

প্রকাশ: ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | ১০:৪১ অপরাহ্ণ | আপডেট: ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | ১০:৪১ অপরাহ্ণ

ফলো করুন-
ইউক্রেনকে অস্ত্র দেওয়ায় পাকিস্তানকে আইএমএফের ঋণ পাইয়ে দেয় যুক্তরাষ্ট্র

প্রতীকী ছবি

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) থেকে ঋণ পেতে ইউক্রেনকে গোপনে অস্ত্র দিয়েছে পাকিস্তান। এ জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে একটি গোপন চুক্তিও করেছে দেশটি। গতকাল রোববার (১৭ সেপ্টেম্বর) এক অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম দ্য ইন্টারসেপ্ট।

যুক্তরাষ্ট্র ও পাকিস্তানের মধ্যে হওয়া এই গোপন অস্ত্র চুক্তির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট দুটির সূত্রের বরাতে এমন তথ্য সামনে নিয়ে এসেছে ইন্টারসেপ্ট। এ ছাড়া এ চুক্তি নিয়ে দেশ দুটির একাধিক গোপন নথি থেকেও বিষয়টি সম্পর্কে নিশ্চিত হয়েছে সংবাদমাধ্যমটি।

চলতি বছরের শুরুর দিকে পাকিস্তানি সামরিক বাহিনীর এক সদস্য দ্য ইন্টারসেপ্টকে এসব নথিপত্র দেয়। নথি থেকে দেখা যায়, ২০২২ সালের গ্রীষ্ম থেকে ২০২৩ সালের বসন্ত পর্যন্ত ইউক্রেনকে অস্ত্র দেবে পাকিস্তান। দুই দেশের মধ্যে এ গোপন চুক্তির মধ্যস্থতা করেছে গ্লোবাল মিলিটারি প্রোডাক্টস। এটি গ্লোবাল অর্ডন্যান্সের একটি সহযোগী সংস্থা। এ প্রতিষ্ঠানটি নিয়ে বেশ বিতর্ক রয়েছে।

ইন্টারসেপ্টের খবরে বলা হয়েছে, দীর্ঘদিন অপেক্ষা করানোর পর চলতি বছরের শুরুতে পাকিস্তানকে ঋণ দেয় আইএমএফ। এ ঋণের ক্ষেত্রে ওয়াশিংটন ও ইসলামাবাদের মধ্যে গোপন চুক্তিই মুখ্য ভূমিকা পালন করে। এসব অস্ত্র মূলত ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর জন্য কেনা।

পাকিস্তানকে ঋণ দেওয়ার ক্ষেত্রে কাঠামোগত নীতি সংস্কারের জন্য বেশ কয়েকটি শর্ত দিয়েছে আইএমএফ। সম্প্রতি আইএমএফের শর্ত মেনে সংস্কার কার্যক্রম হাতে নেওয়ায় দেশজুড়ে বিক্ষোভ দেখা দিয়েছে। ফলে দেড় বছর ধরে চলা রাজনৈতক অনিশ্চয়তার মধ্যে নতুন মাত্রা যোগ করে এসব বিক্ষোভ।

গত বছরের এপ্রিলে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে ক্ষমতাচ্যুত করতে সংসদে অনস্থা ভোটের আয়োজন করে পাকিস্তানি সামরিক বাহিনী। ওই অনাস্থা ভোটে হেরে সরকার থেকে বিদায় নেওয়ার পর বর্তমানে কারাগারে আছেন ইমরান খান।

ইন্টারসেপ্ট জানায়, ইউক্রেন যুদ্ধে পাকিন্তানের নিরপেক্ষ অবস্থান ভালোভাবে নেয়নি যুক্তরাষ্ট্র। এ বিষয়ে পাকিস্তানি কূটনীতিকদের কাছে ক্ষোভ ঝাড়েন মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের কর্মকর্তারা। এমনকি ইমরান ক্ষমতায় থাকলে ভয়ংকর পরিণতি ভোগ করতে হবে বলেও সতর্ক করে যুক্তরাষ্ট্র। তবে তাকে ক্ষমতাচ্যুত করা হলে সব কিছু ক্ষমা করে দেওয়া হবে বলে জানায় ওয়াশিংটন।

তিন ধরনের যুদ্ধাস্ত্র তৈরির কেন্দ্র হিসেবে পাকিস্তানের খ্যাতি আছে। দীর্ঘদিন অস্ত্র ও গোলাবারুদের সংকটে ভোগা ইউক্রেন পাকিস্তান থেকে কামানের গোলা ও অন্যান্য সামরিক সরঞ্জাম পেয়েছে। এ বিষয়ে ওয়াশিংটনে পাকিস্তান দূতাবাসের এক মুখপাত্রের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। যুক্তরাষ্ট্রও বিষয়টি অস্বীকার করেছে।

শেয়ার করুন