Main Menu

গুলশান হামলায় বিশ্ব সম্প্রদায়ের নিন্দা

gulint

রাজধানীর গুলশানের কূটনৈতিক পাড়ার আর্টিসান রেস্টুরেন্টে জঙ্গি হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশ। প্রতিবেশি ভারত, জাপান, ইতালি, রাশিয়া ও মালয়েশিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ গুলশান হামলায় নিন্দা জানিয়েছে। এছাড়া ভয়াবহ এই দুঃসময়ে বাংলাদেশের পাশে রয়েছেন বলে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এক টুইট বার্তায় জানিয়েছেন।

এদিকে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিশ্ব সম্প্রদায়ের দ্রুত যৌথ প্রচেষ্টার প্রয়োজনীয়তা নিশ্চিত করেছে ঢাকা হামলার ঘটনা।

শনিবার রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে দেশটির সংবাদমাধ্যম স্পুটনিক এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী বলছে, জিম্মিদের উদ্ধার অভিযান শুরুর আগেই কমপক্ষে ২০ জিম্মিকে হত্যা করেছে জঙ্গিরা।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, পুলিশের বিশেষ অভিযান শেষে উদ্ধার হয়েছেন ১৩ জন। নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা ছয় হামলাকারীকে হত্যা করেছে। এছাড়া এতে নিরাপত্তা বাহিনীর দুই কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার রাতের ওই হামলায় হতাহতদের মধ্যে ইতালির নাগরিক রয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মাট্টেও রেনজি। তবে এ হামলায় ঠিক কতজন ইতালীয় হতাহতের শিকার হয়েছেন সে বিষয়ে বিস্তারিত কোনো তথ্য দেননি তিনি।

ইতালির প্রধানমন্ত্রী মাট্টেও রেনজি অস্ট্রেলিয়ার প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম এবিসি নিউজকে বলেন, একটি সরকারি বিমান বাংলাদেশের রাজধানীর উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করেছে। শনিবার রোমে এক সংবাদ সম্মেলনে গুলশানে জঙ্গি হামলার ঘটনায় নিন্দা জানান রেনজি।

শুক্রবার রাতে হামলার সময় গুলশানের কূটনৈতিক পাড়ার ওই রেস্টেুরেন্টে ১০ থেকে ১১ ইতালীয় নাগরিক আটকা পড়েন। জিম্মিদশা থেকে পালিয়ে আসা এক ইতালীয় নাগরিকের বরাত দিয়ে মাট্টেও রেনজি এ তথ্য জানান।

রেস্টুরেন্টে জঙ্গি হামলায় ২০ জনের প্রাণহানির ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। ভারতের ১৮ বছর বয়সী এক তরুণী গুলশান হামলায় নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। শনিবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে দেয়া এক পোস্টে তিনি এ তথ্য জানান।

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দাতুক সেরি নাজিব রাজাক ঢাকায় সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন। জনগণের মনে ভীতি তৈরি করতে এ হামলা চালানো হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে ঢাকা হামলার পর একাধিক পোস্ট করা হয়। সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার জন্য মুসলিম বিশ্বের প্রতি আহ্বান জানিয়ে নাজিব বলেন, সন্ত্রাসের কোনো ধর্ম কিংবা জাতি নেই।

শুক্রবার রাত ৯টার দিকে হলি গুলশানের আর্টিসান রেস্টুরেন্টে হামলা চালায় জঙ্গিরা। ধারালো অস্ত্র নিয়ে আল্লাহু আকবর বলে স্লোগান দেয় হামলাকারীরা। এতে মোট ২৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এদের মধ্যে দুই পুলিশ কর্মকর্তা ও ছয় হামলাকারী রয়েছেন। শুক্রবার রাতেই জঙ্গিরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে ২০ জনকে হত্যা করে বলে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*